রাস্ট্রপতি আবদুল হামিদ সাথে একান্ত বৈঠক করেন সাবেক এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন (এফসিএ)


আবুল কালাম আজাদ,কুমিল্লা প্রতিনিধিঃ রাস্ট্রপতি আবদুল হামিদ সাথে
একান্ত বৈঠক করেন বর্তমান সংসদ সদস্য সাবেক আওয়ামীলীগ অর্থ
পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক ও সাবেক এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি ইউসুফ
আব্দুল্লাহ হারুন (এফসিএ)। গত বুধবার স্বাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের
জানান, কুমিল্লা-৩,মুরাদনগর সংসদীয় আসনে মুরাদনগর উপজেলা, মুরাদনগর থানা,
বাঙ্গরা বাজার থানা, সিদ্দিরগঞ্জ পুলিশ ফাড়ি। ২২টি ইউনিয়নে ৩০৬ গ্রাম,
বাখরাবাদ গ্যাসফিল্ড, বাঙ্গরা গ্যাসফিল্ড, মুখলেশপুর গ্যাসফিল্ড, শ্রীকাইল
গ্যাসফিল্ড।

১৩টি কলেজ, আলীম ও কামিল মাদ্রাসা, ৫৪টি,মাধ্যমিক
বিদ্যালয়, দাখিল মাদ্রাসা, ২০৪টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। ৫৪টি হাট
বাজার। একটি ফায়ার সার্ভিস। কোম্পানীগঞ্জ,রামচন্দ্রপুর,মুরাদনগর,
বাখরাবাদ আর্ন্তজাতিক বাস টার্মিনাল। রামচন্দ্রপুর নৌবন্দর, পিঁপিড়ীয়া
কান্দা, পাচঁকিত্তা বাজার ফাঁড়ী নৌবন্দর, সাড়ে তিনলাখ ভোটারসহ ৬লাখ
জনসংখ্যার মধ্যে ৪লাখ ৫৫ হাজার জনবসতির নিয়ে মুরাদনগর। মুরাদনগর
সংসদীয় আসনের ধর্মীয় উপসানালয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে আর্থিক
অনুদান, অসুস্থ নেতার্মীদের চিকিৎসা সেবা, প্রাকৃতিক র্দূযোগে
ক্ষতিগ্রস্থদের সহযোগিতা প্রদান করছেন ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন
(এফসিএ)।


আওয়ামীলীগ অর্থ পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক ও সাবেক
এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন (এফসিএ)
সাংবাদিককে জানান, কোম্পানীগঞ্জ – নবীনগর, কোম্পানীগঞ্জ –
রামচন্দ্রপুর, মুরাদনগর-হোমনা, মুরাদনগর – বাখরাবাদ – ইলেটগঞ্জ, পান্নাপোল

  • বাখরাবাদসড়ক, গাজীরহাট-হায়দরাবাদ- কোরবানপুর- মাদবপুর মহাসড়ক
    নির্মান ও পূর্ননির্মান। ব্রিজ, ৩৫টি কালভাট, শ্রীকাইল কলেজ
    জাতীয়করণ, ১০৪টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বহুতল ভবন নির্মাম,
    মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক ৩০টি ভবন নির্মান, প্রতিটি স্কুল কলেজে
    বিজ্ঞান শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব, আইসিটি ভবন নির্মান, ২০০৫সালে
    মেঘাওয়ার্ড ছিলো এখন নতুন জাহাপুর সাতমোড়া, কামেল্লা, দৌলতপুর ও
    ঘোড়াশাল গ্রামের ৪টি বিদ্যুৎ সাবষ্ট্রেশন নিমান করে ৮ মেগাওয়ার্ড
    থেকে ৫০ মেগাওয়ার্ড পর্যন্ত উন্নত করণ, মুরাদনগর থানা ও বাঙ্গরা বাজার
    থানা ২টি পিকাপ ভ্যান গাড়ী ক্রয়, মুরাদনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নতুন
    অ্যাম্বুলেন্স এক্সরে মিশিন,আল্ট্রাসনোগ্রাম, ইসিজি মিশিন, হাসপাতাল

ভবন ও কোয়াটার মেরামত, সংযোগসড়ক, হাসপাতালসহ ৩০৮০টি সোলার
সিষ্টেম স্থাপন, এনে দেন। এখন প্রতিদিন ৪/৫শ’লোক চিকিৎসা নিচ্ছেন।
মুরাদনগর স্মৃতিসৌধ নির্মান, মিনি ষ্টেডিয়াম, মুক্তিযোদ্ধা
কমপ্লেক্স,শিল্পকলা একাডেমী, টেকনিক্যাল স্কুল, পান্তি পুলিশ ফাড়ি,
মুরাদনগর জিরো পয়েন্টে আল্লাহ- ৯৯টি নাম নির্মান করে মুরাদনগর
উন্নায়নের অগ্রযাত্রার মহাসড়কে মাইলফলক অবদান রেখেছেন তিনি।
মুরাদনগর সংসদ সদস্য ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন (এফসিএ) আরো জানান,
বর্তমান বিশ্বেও উন্নায়নের চাবিকাটি হচ্ছে জ্ঞানভিত্তিক সমাজ গড়ে
তুলা এটাই হচ্ছে মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা ডিজিটাল এদেশ
গড়া পরিকল্পনার মূল মন্ত্র।

প্রধানমন্ত্রী গত ৯বছরে অর্থনৈতিক,সামাজিক,
শিক্ষা,কৃষি,বিদ্যুৎসহ বিভিন্ন খাতে বিশাল উন্নায়ন করেছেন। আজকের
বিশ্বের প্রধান মন্ত্রী ১০জন উন্নায়ন চিন্তাবিদ মধ্যে ১জন হিসেবে
গণনা করা হচ্ছে। এদেশ অর্থনৈতিক উন্নায়ন থেকে বিশ্বের রোলমর্ডেল
হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হচ্ছে। আমি অত্যান্ত কৃতজ্ঞ মুরাদনগর বাসী
২০১৪-২০১৯ সালে সংসদ নিবার্চনে আমাকে নির্বাচিত করায়। অবহেলিত
মুরাদনগরকে শেখ হাসিনার উন্নায়নের মহাসড়কে সামিল করার সুযোগ
দিয়েছেন।

তিনি বলেন, মুরাদনগর শিক্ষা অবকাঠামো, শান্তি পূর্ণ সমাজ,
বিদ্যুৎ, আধুনিক রাস্তাঘাট করে এদেশের সেরা উপজেলা সাথে সামিল
করবো। ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন রাস্ট্রপতি আবদুল হামিদ সাথে একান্ত
স্বাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।ৃ

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Facebook
YouTube
YouTube
error: Content is protected !!