পর্যটক বান্ধব সুনামগঞ্জে জাদুকাঁটার তীর কেঁটে বালু লুটকালে পাঁচ নৌকাসহ আটক ২

সিলেট প্রতিনিধি : পর্যটক বান্ধব সীমান্তনদী সুনামগঞ্জের জাদুকাঁটার তীর কেঁটে অবৈধভাবে বালু লুটকালে বালু বোঝাই পাঁচটি (ইঞ্জিন চালিত) ষ্টিল বডি নৌকাসহ ২ নৌ মালিক ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে আটক হয়েছেন। আটককৃতরা হলেন, জেলার পার্শ্ববর্তী বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার বাদাঘাট দক্ষিণ ইউনিয়নের শক্তিয়ারখেলা গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে বালুবোঝাই নৌকার মালিক আবদুল মালেক একই উপজেলার একই গ্রামের সাধু মিয়ার ছেলে নিয়ামুল হক।

সোমবার বিকেলে তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) ও সহকারি কমিশনার (ভুমি)’র নেতৃত্বে থানার ওসি ও বাদাঘাট পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যদের সাথে নিয়ে জাদুকাটা নদীতে সেইভ মেশিনে ও নদীর তীর কেটে বালু লুট বন্ধে এক অভিযান চালান। অভিযানে জাদুকাঁটার নদীর বড়টেক এলাকার পাকা সড়কের সম্মুখে নদীর তীর কেঁটে অবৈধভাবে বালু লুটকালে বালু বোঝাই পাঁচটি (ইঞ্জিন চালিত) ষ্টিল বডি নৌকাসহ বালু বোঝাই নৌকার ওই দুই মালিককে আটক করা হয়।

পরবর্তীর্তে একই দিন সন্ধায় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে বালু মহাল নীতিমালা লঙ্গন করে নদীর তীর কেঁটে বালু লুটে জড়িত থাকায় আটককৃত নৌকার দুই মালিককে ২৫ হাজার করে ৫০ হাজার টাকা ও অপর পাঁচ বালু বোঝাই নৌকার শ্রমিকদের নিকট থেকে ৬ হাজার করে ৩০ হাজার টাকা জড়িমানা আদায় করা হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানচালে তাহিরপুর থানা পুলিশ ছাড়াও বাদাঘাট পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. আমির উদ্দিন, এএসআই জহির সহ একদল পুলিশ সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

তাহিরপুর থানার ওসি মো. আতিকুর রহমান জানান,পরিবেশ ধ্বংস করে জাদুকাটা নদীতে সেইভ ড্রেজার, বোমা মেশিন কিংবা নদীর তীর কেঁটে বালুপাথর লুটে যে বা যারাই জড়িত থাকুক না কেন তাদেরকে পর্যায়ক্রমে আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে।, ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা ও অভিযানের নেতৃত্বে থাকা তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) ও সহকারি কমিশনার ভুমি মো.মুনতাসির হাসান পলাশ রাতে এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান,বালু মহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন ২০১০ অনুযায়ী এ ৮০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Facebook
YouTube
YouTube
error: Content is protected !!