নৌ পথে প্রাণহানি রোধে, নৌ যানে লাইফ জ্যাকেট রাখার আহবান সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসকের

ব্রিটিশ বাংলা নিউজ : হাওর নদীপথে যাত্রী কিংবা মালামাল পরিবাহী নৌ দুর্ঘটনায় প্রাণহানি সহনীয় পর্যায়ে নামিয়ে আনতে প্রাণহানি রোধে সব ধরণের নৌ যানে লাইফ জ্যাকেট রাখার আহবান জানালেন সুনামগঞ্জে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবদুল আহাদ। তিনি শুক্রবার জেলার দিরাই উপজেলার রফিনগর ইউনিয়নে মাছিমপুর গ্রামে সম্প্রতি নৌ-দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবারের সদস্যদের সাথে সাক্ষাতকালে নিহতদের অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করতে গিয়ে এ আহবান জানান।

নৌ যান মালিক, শ্রমিক, যাত্রী ও উপস্থিত সুশীল সমাজের সাথে মতবিনিময় করতে গিয়ে তিনি জাতীর জনকের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেয়া উদ্যোগে আশ্রয়ন প্রকল্পের আওতায় প্রতিটি গৃহহীন পরিবারকে একটি করে ঘর প্রদানের আশ্বাস প্রদান করেন। হাওড় এলাকায় বজ্রপাত নিরোধক দন্ডসহ পিলার স্থাপনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে জানিয়ে তিনি জরুরি আবহাওয়ার তথ্য সহ সরকারি সেবা পেতে হটলাইন ্য়ঁড়ঃ;৩৩৩্য়ঁড়ঃ;/ ৩৩৩ ব্যবহারের জন্য আহবান জানান তিনি।

জেলা প্রশাসক নৌ দুর্ঘটনা এড়ানোর জন্য সব ধরণের নৌ যানে লাইফ জ্যাকেট ব্যাবহার নিশ্চিত করার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা প্রদান করেন। নৌ দুর্ঘটনা এড়ানোর জন্য সকলের সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য অনুরোধ করেন। পরে তিনি রফিনগর ইউনিয়নের বাংলাবাজার জামে মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করেন এবং নৌ-দুর্ঘটনায় নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনায় বিশেষ মোনাজাতে অংশগ্রহন করেন।

তিনি মসজিদে উপস্থিত মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র ১০টি বিশেষ উদ্যোগ, বাল্য বিবাহ নিরোধ এবং মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে সচেতনতামূলক বক্তব্য প্রদান করেন।

প্রসঙ্গত, গত ২৪ সেপ্টেম্বর বিয়ে বাড়িতে বেড়াতে যাবার পথে ৩১ জন যাত্রী বোঝাই ইঞ্জিনচালিত একটি নৌকা দিরাই কালিয়াকুটা হাওরের আইনুল বিলের পাশে ঝড়ের কবলে পড়ে ডুবে যায়। নৌকা ডুবির ঘটনায় নারী শিশু সহ নিহত, সোহান মিয়া (২), শামীম (২),আবির মিয়া (৩),শহিদুল (৪),আসাদ(৪),শান্তা (৩),তাছমিনা বেগম (১১),আজিরুন (৩০),রহিতুন ন্নেছা (৩৪),করিমা (৬৫) সহ প্রত্যেক ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারকে নগদ ২০ হাজার টাকা ও শুকনো খাবার প্যাকেট মানবিক সহায়তা হিসাবে তুলে দেন জেলা প্রশাসক।

এছাড়াও তিনি প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় নিহতদের প্রতিটি পরিবারকে একটি কওে নতুন ঘর প্রদানের আশ্বাস প্রদান করেন।

এ সময় দিরাই উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) বিশ্বজিত দেব, জেলা ত্রাণ কর্মকর্তা মোঃ ফরিদুল হক, জেলা ফ্যাসিলিটেটর আবু হানিফা তালুকদার,উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম, রফিনগর ইউপি চেয়ারম্যান মো. রেজুয়ান হুসেন খান, সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদ সদস্যগণ এবং এলাকার সুশীল সমাজের লোকজন উপস্থিত ছিলেন।, নোট: সংবাদটি প্রেরণে দিরাই প্রতিনিধি নিজে সম্মতি দিয়েছেন।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Facebook
YouTube
YouTube
error: Content is protected !!