চোরের দলনেতা যখন এক হাই স্কুলের শিক্ষক

নিউজ ডেস্ক ,ঢাকা : পুলিশ রংপুরে এক মোটরসাইকেল চোরের সিন্ডিকেটের সন্ধান পেয়েছে। যার নেতৃত্বে আছেন একজন স্কুল শিক্ষক রয়েছেন বলে জানায় পুলিশ। তার নাম রফিকুল ইসলাম। সে নাগেশ্বরী উপজেলার কুটি পয়ড়াডাঙ্গা হাই স্কুলের সহকারী শিক্ষক হিসেবে কর্মরত ।

গত ১৯ মে দুপুরে কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী থানার ওসি (তদন্ত) জাহিদুল ইসলামের কলেজ রোডস্থ বাসার সামনে থেকে পালসার ১৫০ সিসি হোন্ডা হারিয়ে যায়। হোন্ডা হারানোর পর স্থানীয়ভাবে ইমেজ সংকটে পরে পুলিশ। হোন্ডা উদ্ধারকে চ্যালেঞ্জ হিসাবে নিয়ে তারা মাঠে নামে।

এক পর্যায়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নাগেশ্বরী উপজেলার দক্ষিণ ব্যাপারীরহাট গ্রামের হবিবর মেম্বারের ছেলে রেজাউল হাসান আব্দুল বারেককে (৩০) আটক করে। পরে তার স্বীকারোক্তিতে রংপুরের মডার্ন এলাকায় ইসমাইল হোসেনের বাড়ি থেকে গত বুধবার রাতে মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করে।

ভূরুঙ্গামারী থানার ওসি ইমতিয়াজ কবির জানান, এরা রংপুর আন্তঃবিভাগ মোটরসাইকেল চোর সিন্ডিকেট দলের সক্রিয় সদস্য।

তিনি আরো জানান, বারেক মোটরসাইকেলটি চুরি করে নাগেশ্বরী উপজেলার কুটি পয়ড়াডাঙ্গা হাই স্কুলের সহকারী শিক্ষক রফিকুল ইসলামের নিকট জমা দেয়। রফিকুলের কাজ হচ্ছে চোরাই মোটরসাইকেল কিনে তা বিক্রি করা। পরে বিক্রিত অর্থ ভাগাভাগি করে নেয় তারা।

রফিকুল ইসলাম মোটরসাইকেলটি বিক্রি করে রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার ইসমাইল হোসেনের কাছে। এই ইসমাইল বিআরটিএর এক শ্রেণির অসাধু কর্মকর্তার যোগসাজশে রেজি: নম্বর ও টেম্পারিং করে গাড়ির বডি নং পরিবর্তন করে নতুন নম্বর ও বডি নং ব্যবহার করে সাধারণ মানুষের কাছে বিক্রি করে।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Facebook
YouTube
error: Content is protected !!